,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সুপ্রিম কোর্ট থেকে মূর্তি অপসারণ করা না হলে কঠোর কর্মসূচির হুমকি চরমোনাইয়ের পীরের

বিশেষ প্রতিনিধি, ৪ ফেব্রুয়ারী বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: সুপ্রিম কোর্ট থেকে মূর্তি অপসারণ করা না হলে কঠোর কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমির ও চরমোনাইয়ের পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম।

শুক্রবার বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের উদ্যোগে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে গ্রিক দেবীর মূর্তি অপসারণ এবং শিক্ষানীতি নিয়ে নাস্তিক্যবাদী চক্রান্তের প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ-পূর্ব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের সামনে লেডি জাস্টিসের মূর্তি স্থাপন ইসলামের ওপর চরম আঘাত। সংখ্যাগরিষ্ঠ খ্রিষ্টান অধ্যুষিত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্টের সামনে সর্বোচ্চ আইনপ্রণেতা হিসেবে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর নাম লিপিবদ্ধ আছে। ভারতের সুপ্রিম কোর্টের সামনেও কোনো মূর্তি নেই। তাহলে বিশ্বের বিপুল মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের সুপ্রিম কোর্টের সামনে মূর্তি কী উদ্দেশ্যে?

তিনি আরো বলেন, ইসলাম ও মুসলিম সাংস্কৃতিক চেতনা ধ্বংসের জন্যই মূর্তি স্থাপন করা হয়েছে। ইতিহাস প্রমাণ করে ইতিপূর্বে যারা মূর্তির পেছনে পড়েছে এবং মূর্তির ভালবাসায় লিপ্ত হয়েছে তারা সবাই নির্মমভাবে ধ্বংস হয়েছে।

সিলেবাস সংশোধন করায় সন্তোষ প্রকাশ করে চরমোনাই পীর বলেন, সিলেবাস পরিপূর্ণ সংশোধন এবং শিক্ষানীতি ও শিক্ষা আইন সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলমানদের চিন্তাচেতনা অনুযায়ী প্রণয়ন করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানের জন্য সরকারকে সকল প্রকার কূটনৈতিক তৎপরতাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি।

সমাবেশে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ থেকে মূর্তি অপসারণের দাবিতে ১২ ফেব্রুয়ারি জেলায় জেলায় বিক্ষোভ সমাবেশ ও জেলা জজের কাছে এবং ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রধান বিচারপতির কাছে স্মারকলিপি প্রদানের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন মহাসচিব অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম প্রমুখ।

মতামত...