,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিএনপির প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জিতবে মন্তব্য মীর নাছিরের

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ চট্টগ্রাম, হাটহাজারী বিএনপির দুর্গ-এখানে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে হলে ১৪টি ইউনিয়নেই বিএনপির প্রার্থী বিপুল ভোটের ব্যবধানে জিতবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন বিভাগীয় মনিটরিং টিম প্রধান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরীর চট্টেশ্বরী সড়কে মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিনের বাসভবনে আয়োজিত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন এই দাবী করেন।

এসময় মীর নাছির সাংবাদিকদের বলেন, উপজেলার গড়দুয়ারা, বুড়িশ্চর, চিকনদন্ডী, শিখারপুর, গুমানমর্দনসহ সবকটি ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীদের প্রচারণায় দফায় দফায় হামলা, পোস্টার-ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা, মাইকিংয়ে বাধা দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসব বিষয়ে প্রশাসনকে অবহিত করার পরও কোন প্রতিকার পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি।

মীর নাছির বলেন, ‘আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি পুলিশ প্রশাসনকে যদি শান্তিপূর্ণভাবে কাজ করতে দেয়া হয় তাহলে তারা সুষ্ঠু নির্বাচন করতে পারবে। হাটহাজারীতে ধানের শীষের জোয়ার দেখে সরকার দলীয় লোকজন মরিয়া হয়ে উঠেছে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে তো সরকার পরিবর্তন করবে না। স্থানীয়ভাবে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরির জন্য এ নির্বাচন একটি সিঁড়ি মাত্র। তারপরও সরকার সারাদেশে নিলর্জ্জের মতো ভোট কারচুপি করছে।

হাটহাজারী উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সুষ্ঠু পরিবেশ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে তিনি নির্বাচনের দিন হাটহাজারীতে বহিরাগতদের প্রবেশ নিষিদ্ধের দাবি জানান তিনি। এছাড়া শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের স্বার্থে প্রশাসনকে প্রভাবমুক্ত রাখারও দাবি জানান।

‘কিন্তু সরকার তাদের বাকশালী চেহারার নগ্নতা প্রকাশ করতে স্থানীয় এ নির্বাচনকে শুরু থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছে। বিএনপি পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় যেতে চায়না। বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক দল। তাই আমরা গণতন্ত্র রক্ষার জন্য নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করছি।

শনিবার (৭ মে) হাটহাজারী উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এ উপজেলায় বর্তমানে বিএনপির ১১ জন চেয়ারম্যান রয়েছেন। যারা ইতোমধ্যে জনগণকে তাদের কাঙিক্ষত সেবা দিতে আন্তরিকভাবে কাজ করেছেন।

সব ইউনিয়নে বিএনপির চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে জানিয়ে তিনি সরকারি দলের প্রার্থীর লোকজন প্রতিনিয়ত বিএনপি প্রার্থীদের প্রচার প্রচারণায় বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করে বলেন, হামলা চালাচ্ছে নির্বাচনী প্রচারণায়। প্রার্থীদেরকে জোর করে উঠিয়ে নিয়ে নির্বাচন থেকে সরে যেতে বাধ্য করা হচ্ছে।

নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ করে কোন লাভ নেই মন্তব্য করে মীর নাছির বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের কারণে মানুষের ভোটাধিকার হরণ হয়েছে। এই নির্বাচন কমিশন নিয়ে কথা বলতেও লজ্জা লাগে।

হাটহাজারীর প্রতিটি ইউনিয়নে পার্শ্ববর্তী ফটিকছড়ি উপজেলা থেকে সরকারি দলের ক্যাডার বাহিনী এনে জড়ো করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা বলেন, নির্বাচনে মাঠ পর্যায়ে বিএনপি তথা ধানের শীষের ব্যাপক গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আমরা এ গণজোয়ারকে কাজে লাগাতে পক্ষপাতহীন, প্রভাবমুক্ত নির্বাচন দাবি করছি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অধ্যাপক শেখ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট ইফতেখার মহসীন, অ্যাডভোকেট আবদুস সাত্তার, নগর যুবলীগের সভাপতি কাজী বেলাল উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

 

মতামত...