,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সোনার বার নিয়ে পালিয়েছে পুলিশের এএসআই,পুলিশসহ গ্রেপ্তার ৩

যশোর: যশোরের বেনাপোল সীমান্ত এলাকা থেকে জব্দ করা ১৩টি সোনার বার নিয়ে পালিয়েছে বেনাপোল পোর্টথানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) রফিক।gold

এ ঘটনায় বেনাপোল পোর্টথানায় রফিককে আসামি করে মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে মামলাটি রেকর্ড করা হয়।

এএসআই রফিক নড়াইলের তেরখাদা গ্রামের মৃত হেমায়েত উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, পোর্ট থানার পুলিশের এএসআই রফিকসহ ও পুলিশের অপর দুই সদস্য সোমবার দুপুরে বেনাপোলের রঘুনাথপুর বিজিবি ক্যাম্পের সামনে থেকে ১৩টি সোনার বারসহ ওই গ্রামের সাইদুর মল্লিকের ছেলে রেজাউলকে (২৮) আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে সন্ধ্যার পর থেকে এএসআই রফিককে আর পাওয়া যাচ্ছিলো না।

বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অপূর্ব হাসান বলেন, জব্দ করা ১৩টি সোনার বার নিয়ে এএসআই রফিক পালিয়েছেন। সোমবার সন্ধ্যা থেকে তার খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।  এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

স্বর্ণের বার ছিনতাই ,দুই পুলিশ সদস্যসহ গ্রেপ্তার ৩

চট্টগ্রাম নগরীর লাভলেইন এলাকায় এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে স্বর্ণের বার ছিনতাইয়ের অভিযোগে কোতয়ালী থানার দুই পুলিশ সদস্যসহ তিন জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুরে বন্দর থানা এলাকা থেকে পুলিশ সোর্স লোকমানকে গ্রেপ্তারের পর তার স্বীকারোক্তিতে কোতয়ালী থানার এনায়েত বাজার পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত এএসআই মিজানুর রহমান ও কনস্টেবল খান এ আলমকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি বাংলামেইলকে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার ওসি জসিমউদ্দিন।

তিনি বলেন, ‘গত ২১ সেপ্টেম্বর হাজারীলেইনের দোলন কান্তি চৌধুরী নামে এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে নগরীর লাভলেইন এলাকায় বেশ কিছু স্বর্ণবার ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। এসময় তিনি অভিযোগ করেন, পুলিশ পরিচয়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে স্বর্ণের বার গুলো ছিনতাই করা হয়।’

‘আজ দুপুরে নগরীর বন্দর এলাকা থেকে লোকমান নামে একজনকে আটকের পর, দুই পুলিশ সদস্যর নাম বেরিয়ে আসে। পরে অভিযান চালিয়ে এএসআই মিজানুর রহমান ও কনস্টেবল খান এ আলমকে গ্রেপ্তারের পাশাপাশি ৩টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়েছে। ৩টি স্বর্ণের বারে মোট ৪০ ভরি স্বর্ণ আছে।’

 

মতামত...