,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সৌদি আরবে ৮০ হাজার বাংলাদেশি গ্রেপ্তারের আতঙ্কে

সৌদি আরব থেকে সংবাদদাতা, ২৮ মে,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: সৌদি আরবে বর্তমানে অবৈধভাবে বসবাসকারী ৮০ হাজার বাংলাদেশি গ্রেপ্তারের আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন। মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশ সৌদি আরব সরকারের ক্রাউন প্রিন্স ২৯ মার্চ অবৈধভাবে সৌদি আরবে বসবাসকারীদের ৯০ দিনের সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা করেছেন। আকামাবিহীন যে কেউ এসময়ের মধ্যে জেল জরিমানা ছাড়া দেশে ফিরতে পারবেন। সৌদি সরকারের বিশেষ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩০ জুন। এর আগেই ট্রাভেল ডকুমেন্ট অর্থাৎ পাসপোর্ট সংগ্রহ করে দেশে ফিরতে পারবে। অন্যাথায় জেল জরিমানাসহ নানা শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে প্রবাসীদের।অনেক প্রবাসী বাংলাদেশিদের অভিযোগ সৌদির রিয়াদ দূতাবাস ও জেদ্দা কনস্যুলেটে ট্রাভেল ডকুমেন্ট ইস্যু করতে সমস্যায় পড়ছে কম জনবলের কারণে।

সৌদি আরবের রিয়াদ দূতাবাস ও জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের সামনে অবৈধ প্রবাসীদের ভিড় বাড়ছে। এই বিষয়টির সম্পর্কে ইতিমধ্যে সৌদি আরবে নিযুক্ত রাস্ট্রদূত গোলাম মসিহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা ও সেবা বিভাগের সচিব, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং প্রবাসী কল্যাণ সচিবকে চিঠির মাধ্যমে জানিয়েছেন। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে, কয়েক হাজার বাংলাদেশি রিয়াদ ও জেদ্দা কনস্যুলেট অফিসের সামনে পাসপোটের জন্য প্রতিদিন ভিড় করছেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগকে লেখা চিঠিতে তারা জানিয়েছেন সৌদি আরবে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ট্রাভেল ডকুমেন্ট ইস্যু করতে আরো অতিরিক্ত ৫০ জন অস্থায়ী কর্মচারী নিয়োগ করা প্রয়োজন। তাই স্থানীয় পর্যায় লোক নিয়োগের মাধ্যমেই এ সমস্যা সমাধান করা যেতে পারে। অন্যথায় অবৈধ বাংলাদেশী প্রবাসীদের জেল জরিমানাসহ শাস্তি ভোগ করতে হবে।

 ২০১৩ সালে সাধারণ ক্ষমার ঘোষণা করা হয়েছিল। তখন অবৈধ প্রবাসীদের সুবিধার্থে আরো কয়েক দফা সময় বাড়ানো হয়। রিয়াদ বাংলাদেশ সূত্রে জানা গেছে, সৌদি আরবে হজ বা ওমরা করতে গিয়ে অনেক বাংলাদেশি আর দেশে ফেরত আসেনা। ফলে ভিসার নির্ধারিত মেয়াদশেষে পরবর্তীতে তারা অবৈধ হয়ে পড়েন। তবে গত দেড় মাসে সৌদি আরব সরকারের দেয়া সাধারণ ক্ষমায় ২৬ হাজার অবৈধ বাংলাদেশির ট্রাভেল ইস্যু হয়েছে। তারা পর্যায়ক্রমে টিকেট কেটে সৌদি আরব ত্যাগ করছেন।

মতামত...