,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

সৌভাগ্যের রজনী পবিত্র শবে বরাত আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ১১মে, বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: সৌভাগ্যের রজনী অশেষ মহিমান্বিত পবিত্র শবে বরাত আজ। মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এক রাত। পবিত্র কোরআনে এ রাতটিকে লাইলাতুল মুবারক বা মহিমাময় রজনী হিসাবে বর্ণনা করা হয়েছে।

ফারসি ‘শব’ শব্দটির অর্থ রাত, আর ‘বরাত’ শব্দের অর্থ ভাগ্য। তাই শবে বরাত শব্দের অর্থ ভাগ্যরজনী বা ভাগ্যের রাত। এ কারণে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে শবে বরাত ‘সৌভাগ্যের রজনী’ হিসেবে পরিচিত।

দিনের আলোকরেখা দিগন্তে মিলিয়ে যাবার পরই শুরু হবে পরম কাঙ্ক্ষিত মহিমাময় এ রাত। এই রাতের গুরুত্ব সম্পর্কে পবিত্র হাদিস শরিফে বলা হয়েছে, বিশেষ এ রাতে মহান আল্লাহ তায়ালা আগামী এক বছরের জন্য মানুষের রিজিক, জন্ম-মৃত্যু, ধন-দৌলত, উন্নতি-অবনতি প্রভৃতির ফয়সালা এ রাতেই করা হয়। রাত শেষে ভোর পর্যন্ত এ রাতের ফজিলত অব্যাহত থাকবে।

শবে বরাত সম্পর্কে রাসূলুল্লাহ (দ.) বলেছেন, ‘তোমরা এ রাতে বেশি বেশি নফল নামাজ আদায় করো এবং পরবর্তী দিনে রোজা রাখো। সূর্য অস্তমিত হওয়ার পরক্ষণ থেকে আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নূরের তাজাল্লি পৃথিবীর কাছাকাছি আসমানে প্রকাশ পায়। তখন আল্লাহ পাক বলতে থাকেন, আছে কি কেউ ক্ষমা প্রার্থী? যাকে আমি ক্ষমা করব, আছে কি কেউ রিজিকপ্রার্থী ? যাকে আমি রিজিক প্রদান করব। আছে কি কেউ বিপদগ্রস্ত ? যাকে আমি বিপদমুক্ত করব। আল্লাহপাকের মহান দরবার থেকে প্রদত্ত এই আহ্বান অব্যাহত থাকে ফজর পর্যন্ত।

বস’ত শবেবরাত হলো আল্লাহপাকের মহান দরবারে ক্ষমা প্রার্থনার বিশেষ সময়। আল্লাহপাকের নৈকট্য লাভের এক দুর্লভ সুযোগ এনে দেয় এই শবে বরাত।

রসূলুল্লাহ (দ.) স্বয়ং পবিত্র লাইলাতুল বরাতে গভীর ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল থেকে মহান আল্লাহর দরবারে কান্নাকাটি করতেন বলে হযরত আয়েশা (রা.) বর্ণনা করেছেন।

তাৎপর্যপূর্ণ এই রাতে বিশেষ বরকত হাসিলের মানসে বিশ্বের মুসলিম সমপ্রদায় রাত জেগে ইবাদত-বন্দেগি, জিকির-আসকার, মিলাদ-মাহফিল, কোরআন তেলাওয়াত, নফল নামাজ আদায় ও নিজের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা প্রার্থনায় মশগুল থাকেন। এদিন মুসলমানদের প্রায় সবার ঘরে ফাতেহা দেয়ার জন্য আয়োজন করা হয় হালুয়া ও গোশত-রুটিসহ নানা রকম খাবারের। আত্মীয়স্বজন ও গরিবদের মধ্যে এসব খাবার বিতরণ করা হয়।

পবিত্র শবেবরাত উপলক্ষে আজ বিভিন্ন মসজিদ সমূহে মিলাদ মাহফিল, জিকির-আসকার, নফল নামাজ ও বিশেষ মোনাজাত হবে।

মতামত...