,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

স্কুল ছাত্র শীর্ষেন্দুর হাতে তুলে দেওয়া হলো প্রধানমন্ত্রীর চিঠি

pপটুয়াখালী প্রতিনিধি,বিডিনিউজ রিভিউজঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সেই চিঠি আনুষ্ঠানিকভাবে স্কুল শিক্ষার্থী শীর্ষেন্দু বিশ্বাসের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে জেলা প্রশাসক ও বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী চিঠিটি শীর্ষেন্দুর হাতে তুলে দেন।

পটুয়াখালী সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয়ের দিবা শাখার চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র শীর্ষেন্দু বিশ্বাস পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জের উত্তাল পায়রা নদীতে সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বরাবর একটি চিঠি লিখে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেই চিঠি পাওয়ার পর উত্তাল পায়রায় একটি সেতু নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শীর্ষেন্দুর চিঠির উত্তর পাঠান।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খান মোশারফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. তারিকুজ্জামান মনি, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. সুলতান আহমেদ মৃধা, পটুয়াখালী প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুফতী সালাহউদ্দিন, জেলা কমিউনিষ্ট পার্টির সভাপতি আব্দুল মোতালেব মোল্লা, জেলা জাসদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল আহমেদ, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাকির মাহমুদ সেলিম এবং শীর্ষেন্দুর নানা অবিনাশ চন্দ্র সন্নামত ও মা শীলা রানী সন্নামত।

অনুষ্ঠানে শীর্ষেন্দু চিঠিটি সবাইকে পড়ে শোনায়। পরে জেলা প্রশাসক একেএম শামিমুল হক ছিদ্দিকী ঘোষণা দেন, শীর্ষেন্দুর স্কুলের বেতনসহ বিদ্যালয়ের সকল ব্যয় এখন থেকে বিদ্যালয় কৃর্তৃপক্ষ দেবে।

জেলা পরিষদ প্রশাসক খান মোশারেফ হোসেন শীর্ষেন্দুকে ৫০ হাজার টাকা এবং সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. সুলতান আহমেদ মৃধা ১০ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষনা দেন।

অনুষ্ঠানে শীর্ষেন্দু বিশ্বাসকে বিদ্যালয় থেকে পুরস্কৃত করা হয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও সুধীজন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

মতামত...