,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর স্বীকৃতি পেল বীরাঙ্গনা ফুলমতি

SAMSUNG CAMERA PICTURES

গাইবান্ধা সংবাদ দাতা,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া গাইবান্ধা জেলা সাদুল্যাপুর উপজেলার বীরাঙ্গনা রাজকুমারী রবিদাস ফুলমতির (৭৩)। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া অর বাড়িতে গিয়ে খোঁজখবর নিয়েছেন জেলা প্রশাসক আবদুস সামাদ।

 

সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ভারপ্রাপ্ত (ইউএনও) আবু রায়হান দোলনকে সঙ্গে নিয়ে তিনি বুধবার ২৭ এপ্রিল  বিকেলে ফুলমতির বাড়িতে যান। এসময় তিনি তার (ফুলমতির) শারীরিক ও পারিবারিক বিষয়ে খোঁজখবর নেন।

 

পরে জেলা প্রশাসক আবদুস সামাদ বীরাঙ্গনা ফুলমতির হাতে নগদ ১০ হাজার টাকা তুলে দেন। সেই সঙ্গে ফুলমতির জন্য ঘর, গাভী ও খাস জমির ব্যবস্থাসহ ছেলে মনিরাজের চাকুরীর বিষয়ে আশ্বাস দেন।

 

এসময় সাদুল্যাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কার্যালয়ের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আবদুর রশিদ আজমী, মুক্তিযোদ্ধা সোনাতন মহন্ত, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকতা এটিএম মাহাবুবুল আলম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহনাজ আকতার, সাদুল্যাপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি তাজুল ইসলাম রেজা, নব-নির্বাচিত সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান ফারুক, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান পলাশ, উপজেলা ক্রিড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন খাঁন ও সাদুল্যাপুর ডিগ্রী কলেজের সাবেক ক্রিড়া শিক্ষক রমজান আলী উপস্থিত ছিলেন।

 

প্রসঙ্গত: ১৯৭১’এ মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে এক রাতে স্থানীয় এক বিহারীর সঙ্গে হঠাৎ করে পাকিস্তানী পাক বাহিনী ও তাদের সহযোগিরা রাজকুমারী রবিদাস ফুলমতির বাড়িতে প্রবেশ করে। পরে তাকে ঘর থেকে ঠেনে বের করে বাইরে এনে সম্ভাম্যহানী ঘটায় পাকিস্তানী পাক বাহিনীরা।

 

ফুলমতি গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলা সদরের উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত কুশিরাম রবি দাসের স্ত্রী। তিনি সাদুল্যাপুর উপজেলা শহরের ভূমি অফিসের সামনে রাস্তার ধারে সরকারী খাস জমিতে বসবাস করছেন।

 

মতামত...