,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

‘হলি আর্টিজান বেকারির জিম্মিদের ২০ জন বিদেশি’

aনিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজঃ গুলশান ৭৯ নম্বর সড়কে হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসীদের হাতে জিম্মিদের মধ্যে  ২০ জন বিদেশি রয়েছেন বলে জানিয়েছেন বেকারির সুপারভাইজার সুমন রেজা।  রাত পৌনে নয়টার দিকে আট থেকে ১০ জন যুবক অতর্কিতে আর্টিজানে ঢুকে পড়ে।

সুমন জানিয়েছেন, হামলাকারীদের একজনের হাতে ছিল তলোয়ার, বাকিদের কাছে আগ্নেয়াস্ত্র। ঢুকেই তারা কয়েকটি ফাঁকা গুলি করে এবং আল্লাহু আকবর বলে চিৎকার করে। তখন ভেতরে ২০ জনের মতো বিদেশি নাগরিক ছিলেন। এছাড়া জিম্মিদের মধ্যে বাংলাদেশি নাগরিকও আছেন। সুমন নিজে ও আর্টিজানের আরেকজন কর্মী (ইতালির নাগরিক) দোতলার ছাদ থেকে লাফিয়ে বাইরে আসতে সক্ষম হন।

সুমন বলেন,ওরা যখন বোমা মারছিল, তখন বিল্ডিং কাঁপতে ছিল। ওরা ১০-১২টা বোমা মারছে। মারতেই আছে, মারতেই আছে। ওরা সামনের দিকে স্টেপ নিচ্ছিল মনে হচ্ছিল। তখন ছাদ থেকে লাফ দেই। সুমন রেজা বলেন, ভেতরে থাকা আমাদের কর্মীরা ফোন ধরতেছে না। আমাদের স্টাফদের মধ্যেও দুজন বিদেশি। আর্জেন্টাইন কর্মীর কোনো খোঁজ নেই।

সর্বশেষ রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে ভেতর থেকে অস্ত্রধারীরা পরপর দুটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় এবং বেশ কয়েকটি গুলি ছোড়ে। এ সময় চারদিকে ঘিরে থাকা র‍্যাব-পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা দৌড়ে নিরাপদ দূরত্বে সরে যায়। গুলশান ৭৯ নম্বর সড়কে হলি আর্টিজান বেকারির ৪ কিলোমিটার এলাকা ঘিরে রেখেছে প্রায় ১০ হাজার আইন শৃঙ্কলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। রাত নয়টায় সন্ত্রাসীদের হানা দেয়ার পর এই  প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত রেস্তোরাঁর ভেতরে বা এর গলির মধ্যে এখনো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কেউ ঢুকতে পারেনি।

গুলশানে গোলাগুলি ও বোমা হামলায় অংশ নিয়েছে ৮-১০ জন যুবক। পুলিশের নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে,  ওই যুবকরা পিঠে ব্যাগ নিয়ে “আল্লাহু আকবর” শ্লোগান দিয়ে হামলা চালায়। অসমর্থিত একটি সূত্রে জানা গেছে, ১ জন বিদেশি নাগরিক মারা গেছে। কমপক্ষে ১০ জন পুলিশ গুলিবিদ্ধ। গুলশানে গুলিবিদ্ধ বনানী থানার ওসি সালাউদ্দিন নিহত হয়েছেন। এছাড়া কমপক্ষে ২৫ জন পুলিশ গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।

মতামত...