,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

হাইকোর্টের রায়ে সংক্ষুব্ধ এমপিরা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃঢাকা, ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ- হাইকোর্টের এই রায়ে সংক্ষুব্ধ সংসদ সদস্যরা (এমপি)।js

সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম বিষয়টি উত্থাপন করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তার সঙ্গে সহমত প্রকাশ করে আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ ও জাসদ একাংশের নেতা মইনুদ্দিন খান বাদল ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এ বিষয়ে আইনমন্ত্রীর ব্যাখা চান তারা।

বৃহস্পতিবার (০৫ মে) বিকেলে জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে তারা ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখান।

ফখরুল ইমাম বলেন, রাষ্ট্রের তিনটি অর্গান আইনসভা, বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগ। আইনসভা থেকে আমরা আইন তৈরি করি এবং কার-কত পাওয়া নির্দিষ্ট করে দেওয়া আছে। কিন্তু অতি দুঃখের বিষয় জানাচ্ছি, কিছু দিন আগে ষোড়শ সংশোধনী আইন-২০১৪ নামে যে আইনটি পাস করলাম, যেটি গেজেট আকারে প্রকাশ হয়েছে, হাইকোর্ট ডিভিশনের একটি কোর্ট এটি অবৈধ ঘোষণা করেছে। তাহলে আমরা যে আইন পাস করি, সেটি কি অবৈধ আইন হয়? এটি আমার জানার দরকার আছে। যে আইন পাস করি এভাবে যদি একটার পর একটা অবৈধ ঘোষণা হতে থাকে, তাহলে আইনসভার মর্যাদা থাকে না।

কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, এই সংসদ স্বাধীন ও সার্বভৌম। জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে এই সংসদ গঠিত। এই জাতীয় সংসদে ষোড়শ সংবিধান (সংশোধন) আইন পাস হয়। এতে দুই-তৃতীয়াংশ সংসদ সদস্যদের ভোট এবং রাষ্ট্রপতির সম্মতিক্রমে কোনো বিচারপতিকে অপসারণ করা যাবে। ’৭২’র সংবিধানেই এই বিষয়টি ছিল। সংসদের মান-মর্যাদা দেখার দায়িত্ব স্পিকারের- এই সংসদ স্বাধীন ও সার্বভৌম। এভাবে চললে সংসদের কোনো মান-মর্যাদা থাকবে না।

মইনদুদ্দিন খান বাদল বলেন, আমরা এর জন্য আইনমন্ত্রীর ব্যাখা চাই। দেশের বিরুদ্ধে একটা ষড়যন্ত্র হচ্ছে। গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। এই ষড়যন্ত্র মেনে নেওয়া যায় না।

 

মতামত...