,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

১০ টাকার চাল বিতরণে অনিয়ম ২,১৯৪ কার্ড ফেরত

মোঃ মহসিন হোসেন মিতুল,ঠাকুরগাঁও, গণমাধ্যমে সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির কার্ড বিতরণে অনিয়মের প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পরে টনক নড়েছে ঠাকুরগাঁও উপজেলা প্রশাসনের। মঙ্গলবার সংশোধনের শেষ দিন ঠাকুরগাঁওয়ের ২১ ইউনিয়নের ২ হাজার ১৯৪টি কার্ড ফেরত দিয়েছে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ইউনিয়ন কমিটি।

ইউনিয়নগুলো হলো- রুহিয়া (৭৮), আখানগর (২২), আঁকচা (৮২), বড়গাঁও (৩৪৪), বালিয়া (১২৮), আউলিয়াপুর (৫৮), চিলারং (৫৩), রহিমানপুর (২৭৮), রায়পুর (৬২), জামালপুর (১৩৮), মোহাম্মদপুর (১৮৮), সালন্দর (৩৮), গড়েয়া (১১৭), রাজাগাঁও (৫৬), দেবিপুর (১৫২), নারগুন (১০১), জগন্নাথপুর (৬১), শুকানপুকুরী (৯৪), বেগুনবাড়ী (৭৭), রুহিয়া পশ্চিম (৫৫), ঢোলারহাটসহ (১৫) আরো কিছু কার্ড বিভিন্ন স্থান থেকে ফেরত এসেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি কার্ড ফেরত দিয়েছে বড়গাঁও
ইউনিয়ন ৩৪৪টি ও রহিমানপুর ইউনিয়ন ২৭৫টি। বড়গাঁও ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাত কুমার সিং বলেন, ‘সরকার দলীয় লোকজন খাদ্য কমিটির তালিকা প্রণয়ন করেন। আমি সরকার দলীয় চেয়ারম্যান না হওয়ায় খাদ্য কমিটি তাদের ইচ্ছা মতো কার্ড বিতরণ করায় এই অনিয়ম হয়েছে।’ রহিমানপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান হান্নু বলেন, ‘আমার ইউনিয়নে কিছু কার্ড কমিটির অজান্তে একাধিক ও স্বাবলম্বী ব্যক্তির নাম আশায় ২৭৮ জনের নাম সংশোধন করা হয়েছে। পরবর্তীতে হতদরিদ্রের খোঁজ করে ১০ টাকা কেজি দরের কার্ড দেয়া হবে।’
উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা হাফিজ উদ্দিন জানান, সরকারের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচিতে অনিয়মের  কারণে চেয়ারম্যানদের সংশোধনের সুযোগ দেয়া হয়েছিল। উপজেলার ২১টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ২ হাজার ১৯৪টি কার্ড ফেরত
দিয়েছেন। ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও খাদ্য বান্ধব কমিটির সভাপতি আশরাফুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন ইউনিয়নে অনিয়মের মৌখিক ও লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পরে এই সংশোধনের কাজ করা হয়েছে। এখন সঠিক হত-দরিদ্রের নাম বের করে কার্ড দেয়া হবে। যেন সরকারের এই কার্যক্রম সফল করা যায় সেজন্য সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন তিনি।

মতামত...