,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

১২০ কোটি টাকার ইয়াবা জব্দ,গডফাদারকে চিহ্নিতঃ র‍্যাব ডিজি

rab dg1নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা,১৮, জানুয়ারি (বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম)::ঢাকা ও চট্টগ্রামে অভিযান চালিয়ে ২৮ লাখ পিস ইয়াবা বড়িসহ তিনজনকে আটক ও  একটি মাছ ধরার ট্রলার জব্দ করেছে র‌্যাব-৭।এটি বাংলাদেশের ইতিহাসে ইয়াবার সর্ববৃহৎ চালান আটকের ঘটনা বলে দাবি র‌্যাব কর্মকর্তাদের।

চট্টগ্রামের পতেঙ্গা ও ঢাকা বিমান বন্দর রেল স্টেশন এলাকায় রোববার সারা দিন-রাত অভিযান চালিয়ে এই চালান আটক করা হয়।

র‌্যাব-৭ এর সিইও লে. কর্নেল মিফতাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, রবিবার চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থেকে একটি মাছ ধরার ট্রলারসহ আলী আহমেদ নামে একজনকে বেশ কিছু ইয়াবাসহ আটক করা হয়।তাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর তার দেয়া তথ্যে রোববার রাতে ঢাকা বিমান বন্দর রেল স্টেশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরো দুইজনসহ বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। গণনা করা দেখে গেছে ইয়াবার পরিমাণ প্রায় ২৮ লাখ পিস।বাংলাদেশের ইতিহাসে এটিই সর্ববৃহৎ ইয়াবার চরাচালান আটকের  ঘটনা।আটক কৃত ইয়াবার বাজার মূল্য ১২০ কোটি প্রায়।

সমুদ্রপথে ইয়াবা চোরাচালানকারীদের গডফাদারকে চিহ্নিত করা গেছে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ। তিনি জানান, সমুদ্রপথে বাংলাদেশে আসা ইয়াবা চোরাচালানকারীদের গডফাদারকে আমরা ট্রেস করতে পেরেছি। তদন্তের স্বার্থে তার নাম প্রকাশ করা সম্ভব হচ্ছে না। খুলনা, বরিশালসহ সমুদ্রপথের এলাকাগুলোতে ইয়াবা চোরাচালানের ব্যাপক বিস্তার রয়েছে। সেখানেও কড়া নজরদারি রাখছে র‍্যাব।  শিগগিরই গডফাদারসহ এর সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
১৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে র‍্যাব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব তথ্য জানিয়েছেন। ঢাকা ও চট্টগ্রামে ২৮ লাখ পিস ইয়াবা ও ইয়াবা চোরাচালানকারী চক্রের ৩ জনকে গ্রেফতারের ঘটনায় এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।  গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন- চোরাচালানকারী চক্রের মূল হোতা আলী আহমদ (৫২), হামিদ উল্লাহ (৩২) ও মো. মহিউদ্দিন (৩৫)।
বেনজির আহমেদ জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃতদের কাছ থেকে জানা গেছে, মূলত বমংক নামের এক বার্মিজ নাগরিক সমুদ্রপথে এসব ইয়াবা পাঠান। সমুদ্রের মাঝপথ থেকে এগুলো সংগ্রহ করে বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় সরবরাহ করতেন আয়াতুল্লাহ নামের আরেক চোরাচালানকারী।
বেনজির আহমেদ আরো জানান, আলী আহমেদ একুশে প্রোপার্টিজ নামক একটি ডেভেলপার কোম্পানির মালিক। কোম্পানির আড়ালে তিনি ইয়াবা ব্যবসা করতেন। চোরাচালান কাজে তাকে সহযোগিতা করতেন চাটার্ট অ্যাকাউন্টেন্ট মো. মহিউদ্দিন ও অফিস সহকারী হামিদউল্লাহ

 

মতামত...