,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করতেই ‘গুম’ নাটক

aনিজস্ব প্রতিবেদক,বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ ঢাকা, কোম্পানির ৩২ লাখ টাকা আত্মসাৎ করতেই ‘গুম’ নাটক করেন অ্যাডভোকেট পলাশ কুমার রায়। আর সেই গুম নাটকে সার্বিক সহযোগিতা করেন তার মা মিনা রানী রায়।

শুক্রবার (২২ এপ্রিল) বিকেলে র‍্যাব-২ এর কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ।

মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, কোহিনূর কেমিক্যাল কোম্পানিতে আইন বিভাগে জুনিয়র এক্সিকিউটিভ পলাশ কুমার রায় পাওনাদারদের দেওয়ার জন্য প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে ৩৫ লাখ টাকা তোলেন। পরে কয়েকজন দেনাদারকে ৩ লাখ ৯২ হাজার ৫শ’ টাকা দেনা পরিশোধ করে বাকি টাকা নিয়ে আত্মগোপন করেন পলাশ।

কোহিনূর কেমিক্যালের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, তার কাছে কোম্পানির গুরুত্বপূর্ণ অনেক দলিলাদি ও নথিপত্র রয়েছে এবং তিনি বিভিন্ন পাওনাদার প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদের দেওয়ার জন্য যে টাকা গ্রহণ করেছেন তা থেকে ৩১ লাখ ৭ হাজার ৫শ’ টাকার হিসাবে গড়মিল পাওয়া যায়।

এরপর থেকে পলাশ কুমার রায় স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে চলে যান। পলাশ কুমার রায় গুম হয়েছেন দাবি করে ৩০ মার্চ তার মা মিনা রানী রায় রমনা থানায় একটি জিডি করেন। ছেলেকে জীবিত অথবা মৃত অবস্থায় ফিরে পেতে ৪ এপ্রিল তিনি মহানগর মুখ্য হাকিমের কাছে একটি লিখিত আবেদন করেন, বলেন র‍্যাব-২ এর অধিনায়ক।

তিনি আরো বলেন, মিডিয়ার মাধ্যমে এ ঘটনা র‍্যাব নজরে আসলে র‍্যাব ঘটনাটির রহস্য উদঘাটনে মাঠে নামে। পরে শুক্রবার ভোরে অ্যাডভোকেট পলাশ কুমার রায়কে তেজগাঁওয়ের তেজকুনি পাড়ার একটি বাসা থেকে আটক করে র‍্যাব- ২।

কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, পলাশ গুম হয়েছেন এমন দাবি করা হলেও সার্বক্ষণিক মায়ের সঙ্গে তার মোবাইলে যোগযোগ ছিলো। এ ঘটনায় মা মিনা রানীর কোনো সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

মতামত...