,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

৫০ ইউনিয়ন পরিষদের ভোট বাতিলের দাবি বিএনপির

aনিজস্ব প্রতিবেদক,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকমঃ ঢাকা, ৫০ ইউনিয়ন পরিষদের ভোট বাতিলের দাবি বিএনপির। সব ইউপিতে কারচুপি’র অভিযোগ থাকলেও দৃষ্টান্তমূলকভাবে অন্তত অর্ধশত ইউনিয়নের ফল বাতিল চায় দলটি।

 

মঙ্গলবার ভোট শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সাথে বৈঠক করে সাংবাদিকদের এ দাবি জানান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান।

 

দখল, কারচুপির অভিযোগে অন্তত ৫০টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোট বাতিল করার দাবি জানিয়েছে বিএনপি।

 

নোমান বলেন, ‘৭১২ ইউপির মধ্যে অধিকাংশ ইউপিতে কারচুপি, দখল, জালভোট হয়েছে। ইসির নিরপেক্ষতা প্রমাণের জন্য সুনির্দিষ্ট অভিযোগে অন্তত ৫০টি ইউপির ভোট বাতিলের জন্য আমরা সিইসিকে বলেছি।’

 

এতগুলো ইউপি বাতিল করলে বাকি ইউনিয়নে সুষ্ঠু হয়েছে বলে মনে করেন কিনা? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সব ইউনিয়নে কারচুপি হয়েছে। আমরা বলেছি, অন্তত কয়টি দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে, যাতে ভবিষ্যতে জনগণ বিশ্বাস করে ইসি নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারে।’

 

পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে সরকার দলীয় ক্যাডার-সমর্থকরা ভোট কেন্দ্র দখল করে নিজেদের অনুকূলে ফল ছিনিয়ে আনবে বলেও জানান বিএনপির এই ভাইস -চেয়ারম্যান।

 

তিনি  জানান, পুরো ইউপির ভোট বন্ধ না করে এ পর্যন্ত ইসি অন্তত ৩৪টি কেন্দ্রের ভোট স্থগিতের তথ্য পেয়েছে। অথচ সিইসি ভোটের আগের দিন বলেছিলেন, অনিয়ম হলে দায় পুলিশের, নির্বাচন কর্মকর্তারা সজাগ থাকবে।

 

‘সাত হাজার ভোট কেন্দ্রের মধ্যে কয়েকটি কেন্দ্র বন্ধ করেছে। এটা নিছক তামাশা। সরকারের আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন তামাশার নির্বাচন আয়োজন করেছে। এখন ৫০টি ইউপি’র ভোট বাতিল করলে অন্তত জনগণের আস্থা কিছুটা বাড়তে পারে ইসির প্রতি।’

 

প্রহসনের নির্বাচন হলেও বিএনপি ভোটে থাকবে বলে জানান নোমান।

 

তিনি বলেন, ‘মানুষকে আমরা দেখাতে চাই– তামাশার নির্বাচন হচ্ছে। প্রতিটি নির্বাচনে এ তামাশা চলছে। এ জন্যে আমরা ভোটে অংশ নেবো, যাতে এ তামাশা জনগণ দেখাতে চাই।’

 

বিকেল ৪টার দিকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) রকীব উদ্দীন আহমদের সঙ্গে ইসি সচিবালয়ে এ বৈঠকে বসে বিএনপি প্রতিনিধিদল।

 

আবদুল্লাহ আল নোমানের নেতৃত্বে বিএনপির প্রতিনিধিদল এই বৈঠক করে। বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সুজাউদ্দিন, যুগ্ম মহাসচিব মো. শাহজাহান এবং বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম ও দলটির নির্বাহী কমিটির সদস্য কলিম উদ্দিন আহমেদ মিলন।

 

চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব আবদুস সাত্তার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে সিইসির সাক্ষাতের সময়সূচি চেয়ে আবেদন করেন। কিন্তু তখন ইসি কার্যালয় থেকে কোনো সাড়া পাওয়া যায়নি।

 

পরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় দেন সিইসি।

 

বি এন আর/০০১৬০০৩০০২২/০০০৩৬২/এস

মতামত...