,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

৭৫২ ইউপি নির্বাচনের তফসিলঃ ২২ মার্চ ভোট গ্রহণ

upe নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা,  বিডি নিউজ রিভিউজ ডটকম:: দেশের নবম ইউনিয়ন পরিষদের এ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো চেয়ারম্যান পদে দলভিত্তিক ভোটগ্রহণ হবে। সারাদেশে ৪ হাজার ২৭৯ ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ছয় ধাপে এই নির্বাচন করা হবে ।

ইসির  বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রথম ধাপে ৭৫২ ইউপির ভোট গ্রহণ হবে ২২ মার্চ। এরপর পর্যায়ক্রমে চার হাজার ২৭৫ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতি ধাপে তফসিল ঘোষণার পর পরবর্তী সাত দিনের মধ্যে দলীয় মনোনয়ন প্রধানের ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম ও নমুনা স্বাক্ষর পাঠাতে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোকে চিঠি দিয়েছে কমিশন।

বৃহস্পতিবার সকালে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশন ছয়টি ধাপে ভোটের তারিখ চূড়ান্ত করে স্থানীয় রিটার্নিং কর্মকর্তাদের বিস্তারিত তফসিল ঘোষণার দায়িত্ব দিয়েছে ।

নানা অব্যবস্থাপনার মধ্যে বেলা দুইটার পরে নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ নিজ কার্যালয়ে গণমাধ্যম কর্মীদের ইউপি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তের কথা জানান।

নির্বাচন কমিশনার মো. শাহ নেওয়াজ সাংবাদিকদের বলেন, প্রথম ধাপে ৭৫২ ইউপির ভোট হবে ২২ মার্চ। ৩১ মার্চ ৭১০টি ইউপি, ২৩ এপ্রিল ৭১১টি ইউপি, ৭ মে ৭২৮টি ইউপি, ২৮ মে ৭১৪টি ইউপি এবং ৪ জুন ৬৬০টি ইউপিতে ভোট হবে।

এইএসসি পরীক্ষার্থীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করে পরীক্ষার ফাঁকে ফাঁকে এই তারিখ ঠিক করা হয়েছে। প্রথম দফার তফসিল কমিশন ঠিক করেছে। বাকিগুলো স্থানীয় পর্যায়ে ঘোষণা করা হবে।

শাহ নেওয়াজ বলেন, গত পৌরসভা নির্বাচনেও কিছু কিছু গাফিলতির ঘটনা ঘটেছিল, আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি। ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে আরো কঠোরভাবে তাদের হ্যান্ডল করবো। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দ্যেশে বলতে চাই, কেউ গাফিলতি করলে বা দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হলে সাথে সাথে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, আমরা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে আলোচনা করেই নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যেন তারা সুন্দরভাবেই নির্বাচন পরিবেশ নিশ্চিত করতে পারে। তাই কেউ গাফিলতি করলে বা কারো পক্ষে কাজ করার চেষ্টা কঠোরভাবে দমন করবো।

 

তিনি বলেন, স্পষ্টভাবে বলতে চাই-গণমাধ্যম আমাদের খবর জানানোর চেষ্টা করে। তাই তারা কেন্দ্রে প্রবেশ করেই খবর দেবে। কিন্তু বেশিক্ষণ কেন্দ্রে অবস্থান করবে না।

ইসির জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান আরজু বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, প্রথম দফায় ২২ মার্চের নির্বাচনে অংশ নিতে ২২ ফেব্রুয়ারির মধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে। ২৩ ও ২৪ ফেব্রুয়ারি বাছাইয়ের পর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় রাখা হয়েছে ২ মার্চ। প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হবে ৩ মার্চ।

দলীয়ভাবে ইউনিয়ন পরিষদে প্রথম ভোট হচ্ছে এবার। চেয়ারম্যান পদে নিবন্ধিত দলগুলো প্রার্থী মনোনয়ন দিতে পারবে। এর বাইরে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার সুযোগ থাকছে। চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন দলীয়ভাবে হলেও সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদের ভোট হবে নির্দলীয়ভাবে।

 

 

 

 

ছয় ধাপে ইউপি নির্বাচন
১১ ফেব্রুয়ারি ৭৫২ ইউপির তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। এসব ইউপিতে ভোট হবে ২২ মার্চ (মঙ্গলবার)। দ্বিতীয় পর্বের ৭১০ ইউপির তফসিল হবে ১৮ ফেব্রুয়ারি, ভোট ৩১ মার্চ (বৃহস্পতিবার)। তৃতীয় পর্বে ৭১১ ইউপির ১৫ মার্চ তফসিল হবে। ভোট হবে ২৩ এপ্রিল। চতুর্থ পর্যায়ে ৭২৮ ইউপির তফসিল হবে ২৭ মার্চ। ভোট হবে ৭ মে। ৫ম ধাপে ৭১৪ ইউপির তফসিল হবে ২১ এপিল। ভোট হবে ২৮ মে। এবং শেষ বা ষষ্ঠ ধাপে ভোট হবে ৪ জুন। ২৮ এপ্রিল ৬৬০ ইউপির তফসিল ঘোষণা করা হবে স্থানীয় পর্যায়ে।

সাত দিনের মধ্যে প্রার্থীর চূড়ান্তে দলকে ইসির চিঠি: প্রথমবারের মতো দলীয় ভিত্তিতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলো প্রতিটি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে একজন করে প্রার্থী মনোনয়ন দিতে পারবে। এজন্যে রাজনৈতিক দলগুলোকে তফসিল ঘোষনার ৭ দিনের মধ্যে দলের ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম,পদবী, নমুনা স্বাক্ষারসহ একটি চিঠি রিটানিং অফিসার ও নির্বাচন কমিশনে জমা দেওয়ার জন্যে নিবন্ধিত দলগুলোকে চিঠি দিয়েছে ইসি।

উল্লেখ্য, বর্তমানে দেশে চার হাজার ৫৭১টি ইউনিয়ন পরিষদ রয়েছে। স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯-এর ২৯ (৩) ধারা অনুযায়ী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তারিখ পাঁচ বছর পূর্ণ হওয়ার আগের ১৮০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করার বিধান রয়েছে। এ হিসাবে গত বছরের অক্টোবর থেকে চলতি বছরের জুনের মধ্যে সবগুলো ইউপির নির্বাচন শেষ করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

দেশে সব মিলিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয়েছে আটবার। সর্বশেষ ২০১১ সালে ২৯ মার্চ থেকে ৩ এপ্রিল প্রথম দফায় প্রায় ছয়শ ইউপিতে ভোট হয়। দ্বিতীয় দফায় ৩১ মে থেকে ৫ জুলাই তিন হাজার আটশর বেশি ইউপিতে নির্বাচন করা হয়।

 

 

বিএন আর/১৬০২১১/০০০৩৩/ডি

মতামত...