,

সর্বশেষ
bnr ad 250x70 1

শেখ কামাল ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে শিরোপা মালদ্বীপ টিসি স্পোর্টসের

বাবুল হোসেন বাবলা, ৪ মার্চ,বিডিনিউজ রিভিউজ.কম:: চট্টগ্রামে শেখ কামাল ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শেষ দিনে দর্শকরা এসেছে মাঠে। এমনিতেই দেশের কোন ক্লাব ছিলনা এবারের টুর্নামেন্টের ফাইনালে। তার উপর কোরিয়ার ক্লাব পোচেয়ন স্পোর্টস ক্লাবের কাছে হেরে সেমিফাইনাল থেকে স্বাগতিক আবাহনী বিদায় নেওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই চট্টগ্রামবাসীর মন খারাপ হওয়ারই কথা। চট্টগ্রামের দর্শকরা এসেছে মাঠে। দর্শকরা মাঠে যেমন খেলা দেখতে ঠিক তেমনই খেলা হয়েছে শুক্রবারের ফাইনালে । ফুটবলের সঠিক নির্যাস যেন মাঠে হাজির দর্শকরা নিতে পেরেছে শুক্রবার। দুর্দান্ত এই ম্যাচটির সমাপ্তিও হয়েছে দুর্দান্তভাবে। যেখানে প্রতি পদে পদে ছিল উত্তেজনায় ঠাসা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচটি শেষ হয়েছে উত্তেজনার মধ্য দিয়ে। যেখানে শেষ হাসি মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টসের। নির্ধারিত ৯০ মিনিটের পর অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের খেলাসহ ১২০ মিনিটের স্নুায়ূক্ষয়ী লড়াইয়ের পর ও শেষ হয়নি ম্যাচের ভাগ্য। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকারে নিষ্পত্তি ম্যাচে শিরোপা জিতে নিয়েছে মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টস। এবারের টুর্নামেন্টের ফাইনালে আসা দুদলই ছিল এতদিন অপরাজিত। শেষ পর্যন্ত টিসি স্পোর্টস অপরাজিত থেকেই শিরোপা জিতে নিল মালদ্বীপের ক্লাবটি। মাঠের লড়াইয়ে দুদলই ছিল দুর্দান্ত। সুযোগের সঠিক ব্যাবহারও করেছে দুদলই। কিন্তু নিয়তির কাছে হেরে গেল কোরিয়ার ক্লাব পোচেয়ন সিটিজেন ক্লাব। আক্রমণ আর গোল করা সব দিক থেকে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত সে সব গোল ধরে রাখতে পারেনি তারা। আর শেষ পরিণতি হিসেবে টাইব্রেকারে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করত হলো কোরিয়ানদের। কখনো গতিময় ফুটবল আবার কখনো ছন্দময় ফুটবল মিলে খেলাটা ছিল জমজমাটই। এ যেন শেষ ভাল যার সব ভাল তার প্রবাদের মতই। এতদিন ধরে মাঠের খেলা এবং গ্যালারির সরব উপস্থিতির সে অভাব দেখা দিয়েছিল সেটা যেন গতকাল একেবারে পরিপূর্নভাবে পেয়ে গেল শেখ কামাল ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট। দারুণ সুন্দর সে লড়াইটি শেষ হলো মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টসের শিরোপা জয়ের মধ্য দিয়ে। আর এর মধ্য দিয়ে শেষ হলো শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের এবারের আসর। এখন পরের আসরের জন্য অপেক্ষা।
ম্যাচের শুরু থেকেই আবাস মিলছিল প্রতিদ্বন্দ্বীতার। দু দলই আক্রমণ আর পাল্টা আক্রমণ দিয়ে শুরু করে খেলা। বল একবার মাঠের এ প্রান্তেতো আরেকবার অপর প্রান্তে। কিন্তু গোল করার মত সুযোগ আসছিলনা কোন দলেরই। তবে প্রথম সুযোগটা আসে মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টসের কাছে। ৭ মিনিটে এগিয়ে যেতে পারতো টিসি স্পোর্টস। স্যামুয়েল কাসিমের থ্রু পাস থেকে বল পেয়ে বক্সের উপর থেকে ফরোয়ার্ড মেহেদী হোসেনের সাইড ভলিটি সাইডবার ঘেষে বাইরে চলে গেলে সে যাত্রায় বঞ্চিত হতে হয় তাদের। তবে দ্বিতীয় আক্রমণ থেকে গোল আদায় করে নেয় টিসি স্পোর্টস। খেলার ১৮ মিনিটের সময় ডান প্রান্তে কর্নার লাভ করে টিসি স্পোর্টস। হাসান নাইজের নেওয়া কর্নার কিক থেকে উড়ে আসা বলে দুর্দান্ত এক হেডে বল জালে পাঠিয়ে দলকে উল্লাসে মাতান রক্ষণ ভাগের খেলোয়াড় হানিফ আবদুল্লাহ। গোল হজম করে যেন তেথে উঠে কোরিয়ানরা। কিন্তু গোল পরিশোধের মত কোন সুযোগ সৃষ্টি করতে পারছিলনা। উল্টো ৩০ মিনিটে আরো একটি গোল হজম করতে পারতো পোচেয়ন ক্লাব। এবার নিজেদের অর্ধ থেকে বল পেয়ে যান ইব্রাহিম। তাকে বলটি পাঠিয়েছিলেন প্রথম গোলের যোগান দাতা হাসান নাইজ। ইব্রাহিম বলটি ধরে বেশ ক্ষিপ্রতার সাথে এগিয়ে গিয়েছিলেন। সামনে কেবল পোচেয়ন সিটিজেন ক্লাবের গোল রক্ষক চোঁই আহ সিয়ং। কিন্তু ইব্রাহিম পারলেননা তাকে কাটিয়ে বলটা জালে পাঠাতে। তার গায়েই বল মেরে দিলেন ইব্রাহিম। আরো একটি সহজ গোলের সুযোগ নষ্ট করে ইব্রাহিম। এররপ যেন আরো তেথে উঠে পোচেয়ন ক্লাব। একের পর এক আক্রমণে তটস্থ করে রাখে টিসি স্পোর্টসের রক্ষণ ভাগকে। কিন্তু গোল যেন ধরা দিচ্ছিলনা। অবশেষে গোলের দেখা পায় পোচেয়ন সিটিজের ক্লাব। তাদের গোলের উৎসও কর্নার কিক। এবার বামপ্রান্ত থেকে জি কিয়ং ডিউকের কর্নার। ভেসে আসা বলে দারুন হেড করেন জং ইয়ং। বল ঠিকানা খুজে নেয় জালে। ১-১ এ সমতা ফিরে আসে খেলায়। আর তাতেই বিরতিতে যায় দুদল।
বিরতির পরও দুদল অব্যাহত রাখে আক্রমণের ধারা। আর সে সুবাধে দ্বিতীয়ার্ধের ৯ মিনিটেই এগিয়ে যায় কোরিয়ার ক্লাবটি। এবার ডানপ্রান্ত থেকে পার্ক সিয়ং রিওলের কর্নার থেকে ভেসে আসা বলটিতে হেড করতে অনেকেই লাফিয়ে উঠেন টিসি স্পোর্টসের ডি বক্সে। কিন্তু টিসি স্পোর্টসের ফারাহ আহমেদের মাথায় লেগে বল জড়িয়ে যায় নিজেদের জালে। ফলে এগয়ে যায় পোচেয়ন সিটিজেন ক্লাব। এরপরও আক্রমণের ধারা অব্যাহত রাখে কোরিয়ানরা। বারবার দুই প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে তটস্থ করে রাখে টিসি স্পোর্টসের রক্ষণভাগকে। এরই মধ্যে দু একটি আক্রমণ করলেও সেগুলো তেকে গোল পায়নি। অপরদিকে টিসি স্পোর্টস গোল পরিশোধে মরিয়া হয়ে উটে। আর তাদের সামনে সে সুযোগ আসে দ্বিতীয়ার্ধের ৩৭ মিনিটে। ডানপ্রান্তে পোচেয়ন ডি বক্সের বাইরে ফ্রিকিক লাভ করে টিসি স্পোর্টস। বদলী ইব্রাহিম ইয়ামিনের নেওয়া ফিকিকটি হেডের সাহায্যে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে কোরিয়ার ক্লাবের চোঁ টি ও। কিন্তু তার হেড থেকে বল চলে আসে ডি বক্সের বাইরে। সেখান থেকে দুর্দান্ত গতিতে শট নেন আজম মোহাম্মদের বিদ্যুৎ গতিতে বল জড়িয়ে যায় জালে। খেলায় সমতা ফিরে আসে ২-২ গোলে। পরের মিনিটে আবার এগিয়ে যেতে পারতো টিসি স্পোর্টস। কিন্তু ডি বক্সের ভেতর থেকে আজম মোহাম্মদের শট চলে যায় সাইডবার ঘেষে। ম্যাচের বাকি সময়ে আর কোন দলই গোল করতে পারেনি। ফলে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা ২-২ গোলে অমিমাংসিত থাকে। ফলে আরো অতিরিক্ত ৩০ মিনিটে গড়ায় খেলা।
অতিরিক্ত সময়ের প্রথম ১৫ মিনিটের খেলায়ও কোন দলই গোল করতে পারেনি। এ অর্ধেও অবশ্য চাপ সৃষ্টি করে খেলতে থাকে পোচেয়ন ক্লাব। দু একটি সুযোগও পেয়েছিল। কিন্তু সেগুলোকে কাজে লাগাতে পারেনি। শেষ ১৫ মিনিটের শুরু থেকেও ম্যাচে উত্তেজনা। কিন্তু গোলের সুযোগ ছিল অধরা । এ অর্ধের ১০ মিনিটে আরো একটি সুযোগ হাতছাড়া করে কোরিয়ানরা। এবার ডান প্রান্ত থেকে জাং ইয়ং এর মাইনাস থেকে বলটিতে ডি বক্সে পা লাগাতে পারেনি পার্ক। ফলে শেষ সুযোগটি হারায় কোরিয়ানরা। ফলে শেষের ১৫ মিনিট সহ অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের খেলাও শেষ হয় ২-২ গোলে সমতার মধ্য দিয়ে। আর তাতেই ম্যাচের ফল নির্ধারণের জন্য আশ্রয় নিতে হয় টাইব্রেকারের। আর সে টাইব্রেকারে কোরিয়ার ক্লাবটিকে ৪-২ গোলে হারিয়ে প্রথমবারের মত খেলতে এসে শি জিতে নিল মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টস। টাইব্রেকারে পোচেয়নের চো তাই এর নেওয়া প্রথম শটটি রুখে দেন টিসির গোল রক্ষক। অপরদিকে টিসির পক্ষে প্রথম গোল করেন ইলশায়েদ। এরপর মালদ্বীপের একে একে স্টুয়ার্ট, ইব্রাহিম এবং আদনান গোল করেন। অপরদিকে পোচেয়ন ক্লাবের কো জি মান এর নেওয়া শটটি আবার টিসির গোল রক্ষক রুখে দিলে ৪-২ গোলের জয় নিয়ে শিরোপা জয়েল উল্লাসে মাতে মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টস ক্লাব।

মতামত...